ড. শরীফ সাকীর ‘অনলাইন লিটারেচার গ্রুপ’স ইউনিটি’ স্বর্ণপদক লাভ

3

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: গত ২২ অক্টোবর শুক্রবার বিকাল ৩টায় অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো ঢাকার রমনা ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউটে অনলাইন লিটারেচার গ্রুপ’স ইউনিটি(ওএলজিইউ) কর্তৃক আয়োজিত আন্তর্জাতিক গুণিজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠান।

প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট এর বিচারপতি এস এম মুজিবুর রহমান,উদ্ভোধক একুশে পদকপ্রাপ্ত জাতীয় শিল্পী ও মুক্তিযোদ্ধা শাহিন সামাদ।

প্রধান আলোচক মাহমুদুল হাসান নিজামী,ছড়াকার আতিক হেলাল সহ বাংলাদেশের অনেক গুনী কবি ও সংগঠক উপস্থিত ছিলেন।উক্ত অনুষ্ঠানে সাহিত্যে বিশেষ অবদান রাখার জন্যে দেশের বহুসংখ্যক কবি লেখককে স্বর্ন ও রৌপ্য পদক এবং সম্মাননা সনদ প্রদান করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে কবি ও লেখকদের বিভিন্ন সময় পৃষ্ঠপোষকতা এবং নবীন কবি লেখক সৃষ্টিতে অবদান রাখার জন্য মানবিক বিশ্ব গড়ার আহবায়ক ডক্টর আলহাজ্ব শরীফ আব্দুল্লাহ হিস সাকীকে স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য যে, তিনি ১৯৭২ সালের ১৬ই আগস্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের বিরামপুর গ্রামে এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

পিতা মৃত মো: আব্দুর রহিম (সাবেক ব্যাংকার)।তিনি

চাঁনপুর তমিজউদদীন মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ১৯৮৭ সালে এসএসসি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট,জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স,মাস্টার্স ; আমেরিকান ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি থেকে এলএলএম, এমফিল, (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ডক্টর হাসান তালুকদারের অধীনে) আইন বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি বাংলাদেশের একজন প্রখ্যাত আইন বিশেষজ্ঞ ও মানবাধিকার কর্মী। বাংলা সাহিত্যের তরুণ কবি ও লেখকদের জীবন মান উন্নয়নে তিনি শারীরিক ও আর্থিক সহযোগিতার হাত প্রশস্ত করে রেখেছেন।সাহিত্যাঙ্গনে ইতোমধ্যেই তিনি কাব্যবন্ধু হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছেন।মানবাধিকার রক্ষা, সমাজ সেবা,শিক্ষার মানোন্নয়ন ও সাহিত্য কর্মে তরুণ প্রজন্মকে অনুপ্রেরণা প্রদানের জন্য তিনি অসংখ্যবার সংবর্ধনা ও সম্মাননা পেয়েছেন। তিনি বর্তমানে মহাসচিব,আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দুর্নীতি বিরোধী সোসাইটি; ভাইস চেয়ারম্যান, সেন্ট্রাল কমিটি এন পি এস মানবাধিকার ; কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা, হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটি। এই গুণিজন বেশ কিছুকাল প্রাইম ইউনিভার্সিটিতে (সাবেক উত্তরা ক্যাম্পাস) আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্বেও নিয়োজিত ছিলেন।

 

আইএনবি/