নাইজেরিয়ায় ২০০ গ্রামের বাসিন্দাকে গুলি করে হত্যা করল দস্যুরা

7

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: নাইজেরিয়ার সেনাবাহিনী দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে দস্যুদের অবস্থান লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালিয়েছে। ওই ঘটনার জেরে গ্রামের অন্তত ২০০ নিরীহ বাসিন্দাকে গুলি চালিয়ে হত্যা করেছে দস্যুরা।

দস্যুদের সঙ্গে সামরিক বাহিনীর ব্যাপক লড়াইয়ের পর বাসিন্দারা গ্রামে ফিরে এসেছেন। গতকাল স্থানীয় সময় শনিবার বাসিন্দারা তাদের বাড়িতে ফিরে আসেন।

গ্রামে ফিরে এসেই তাদের প্রথম কাজ হয়েছে- নিহত স্বজনদের সমাহিত করার ব্যবস্থা করা। যারা পালাতে পারেননি, মোটরসাইকেলে আসা দস্যুরা সরাসরি গুলি চালিয়ে তাদের হত্যা করেছে। তাদের গণ সমাধির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সরকারিভাবে বলা হচ্ছে, ৫৮ জন নিহত হয়েছে। তবে গ্রামবাসীদের বরাত দিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, নিহতের সঠিক সংখ্যা অন্তত ২০০ জন। সরকার কেবল এক চতুর্থাংশের কথা স্বীকার করছে।

উম্মারু মাকেরি তার স্ত্রী এবং তিন সন্তানকে হারিয়েছেন। তিনি বলেছেন, অন্তত ১৫৪ জনকে সমাহিত করা হয়েছে। সেখানকার বাসিন্দারা বলেছেন, মোট মৃতের সংখ্যা অন্তত ২০০ জন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, অন্তত ৩০ জনকে হত্যা করা হয়েছে জামফারার স্থানীয় এলাকা আনকা’তে। সেখানে তিন শতাধিক দস্যু অস্ত্র নিয়ে মোটরসাইকেলে চেপে এসে গুলি চালিয়েছে। তারা সেখানে অন্তত আটটি গ্রামে তাণ্ডব চালিয়েছে। দস্যুরা গত মঙ্গলবার তাণ্ডব চালিয়েছে বলে জানা গেছে।

সে দেশের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, গত সোমবার তারা দস্যুদের অবস্থান লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনার পরদিনই তাণ্ডব শুরু করে দস্যুরা।
সূত্র: দ্য নিউ ডেইলি।

 

আইএনবি/বিভূঁইয়া