টেলিযোগাযোগ-ইন্টারনেট জরুরি সেবার আওতায়

0

আইএনবি নিউজ: মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একটি প্রজ্ঞাপনে দেশব্যাপী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধের জন্যে যেকয়টি সেবাকে জরুরি সেবা হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে সেখানে প্রথমবারের মতো ইন্টারনেট ও টেলিযোগাযোগ যুক্ত হলো।

সরকারিভাবে টেলিযোগাযোগ এবং ইন্টারনেটকে জরুরি পরিষেবা হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

সরকার ঘোষিত দশ দিনের সাধারণ ছুটির মধ্যে প্রায় সব সেবা সীমিত করা হলেও বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস এবং পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের সঙ্গে টেলিযোগাযোগ ও ইন্টারনেটকে এর বাইরে রাখার কথা বলা হয়েছে প্রজ্ঞাপনে।

টেলিযোগাযোগ সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, এর আগে অনেকবার তারা ইন্টারনেট এবং টেলিযোগাযোগকে জরুরি সেবা হিসেবে ঘোষণার দাবি জানিয়ে সরকারের দফতরে দফতরে ধরনা দিলেও সে বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো স্বীকৃতি আসেনি।

তবে এখন যেহেতু দেশ একটি ক্রান্তিকালের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে সে কারণেই এই ঘোষণা আসলো বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের ছুটি। সেই সঙ্গে ২৭ ও ২৮ মার্চ এবং ৩ ও ৪ এপ্রিল শুক্রবার ও শনিবারের সরকারি ছুটি মিলিয়ে মোট দশ দিনের ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। এই সময়ে কাঁচাবাজার, খাবার, ওষুধের দোকান এবং হাসপাতাল ছুটির আওতার বাইরে থাকবে বলে জনপ্রশাসনের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে।

এর আগে ২৩ মার্চ বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন সংশ্লিষ্ট টেলিযোগাযোগ ও ইন্টারনেট কোম্পানিগুলোকে দেওয়া এক চিঠিতে লকডাউন ঘোষিত এলাকায়ও জরুরি প্রয়োজনে যানবাহন ব্যবহারের জন্যে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

আইএনবি/বিভূঁইয়া