করোনায় আক্রান্ত চিত্রনায়ক মারুফ: কাজী হায়াৎ

2

বিনোদন ডেস্ক: জনপ্রিয় নায়ক কাজী মারুফ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে আছেন। শনিবার (২৮ মার্চ) এ তথ্য জানিয়েছেন মারুফের বাবা পরিচালক কাজী হায়াৎ।

তিনি বলেন, মারুফ ও তার স্ত্রীর শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। এখন অসুস্থতা প্রাথমিক অবস্থায় রয়েছে। মারুফ ও তার স্ত্রী এই মুহূর্তে আইসোলেশনে রয়েছে।

তবে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন মারুফ। তিনি জানিয়েছেন, তার স্ত্রীর জ্বর হলেও তা কভিড-১৯ নয়। আর তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন।

কাজী হায়াৎ আরও জানান, মারুফ এই মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন। সেখানেই তাদের চিকিৎসা চলছে।

তিনি জানান, গত ২১ মার্চ তার স্ত্রীর প্রথম করোনা ধরা পড়ে। এর চার দিন পর মারুফের শরীরেও করোনা ধরা পড়ে। তারা দুজনই এখন সম্পূর্ণ আইসোলেশনে আছেন এবং চিকিৎসকের পরামর্শে জ্বরের প্রাথমিক ওষুধগুলোই সেবন করছেন।

মারুফ এবং তার স্ত্রীর সুস্থতার জন্য তার ভক্তদের কাছে দোয়া চেয়েছেন কাজী হায়াতা।

খুব অল্প সময়েই বাংলাদেশী চলচ্চিত্রে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন প্রখ্যাত পরিচালক কাজী হায়াতের ছেলে কাজী মারুফ। বাবার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে এসে তারই পরিচালনায় করা ছবি ‘ইতিহাস’ দিয়ে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

২০০১ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি তারিখে একই দিনে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় এবং চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন। সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে ওরিয়েন্টেশন শেষ করে বিকেল ৫টায় এফডিসি-র ১ নং ফ্লোরে ‘ইতিহাস’ চলচ্চিত্রের মহরত হয়। পরবর্তীতে লন্ডন স্কুল অব কমার্স থেকে ব্যবসায় শিক্ষায় স্নাতক সম্পন্ন করেন কাজী মারুফ।

কাজী হায়াৎ পরিচালিত ইতিহাস চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায় ২০০২ সালে।

কাজী মারুফ সাম্প্রতিক সময়ে বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রের পাশাপাশি বিকল্প ধারার চলচ্চিত্রেও অভিনয় শুরু করেছেন। দেহরক্ষী ছবিতে নাম ভূমিকায়, আনিসুর রহমান মিলন এবং ববির পাশাপাশি দুর্দান্ত অভিনয় করেন। ইভটিজিং ছবিতে তার কাশেম চরিত্রটি দর্শকপ্রিয়তা পায়।

বাবার পরিচালিত ছবিতেই বেশি কাজ করেছে মারুফ। তার অভিনীত ছবিগুলোর মধ্যে আছে ক্যাপ্টেন মারুফ (২০০৭), রাস্তার ছেলে (২০০৯), বস্তির ছেলে কোটিপতি (২০১০), দারোয়ানের ছেলে (২০১১), রাজা সূর্য খাঁ (২০১২), মানিক রতন দুই ভাই, দেহরক্ষী (২০১৩), দেহরক্ষী, ইভটিজিং, সর্বনাশা ইয়াবা এবং ছিন্নমূল।

আইএনবি/বিভূঁইয়া