রাত ২:০০, রবিবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং

(২০১৭-১৮) অর্থবছরের প্রথমার্ধ মুদ্রানীতি ঘোষনা হয়েছে অর্থ ও বাণিজ্য

আইএনবি নিউজ টোয়েন্টিফোর.কম

জুলাই ২৬, ২০১৭

অর্থনৈতিক ডেস্ক: জাতীয় মুদ্রানীতির প্রথমার্ধের মুদ্রানীতি ঘোষনা সম্পন্ন হয়েছে।জাতীয় মুদ্রানীতি ঘোষনার মূল উদ্দেশ্য হলো মূল্যস্ফীতিকে নিয়ন্ত্রন করে জাতীয় প্রবৃদ্ধি অর্জন করা। সেই লক্ষেই আজ বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে এই মুদ্রানীতি ঘোষনা করা হয়েছে।

আজ দুপুর সোয়া ১২টায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির ২০১৭-১৮ অর্থবাজেটের প্রথমার্ধের মূদ্রানীতি ঘোষনা করেন। প্রতিবছরের অর্থবছরকে দুই ভাগে ভাগ করে জুলাই থেকে ডিসেম্বর এবং জানুয়ারী থেকে জুন প্রর্যন্ত এই মূদ্রানীতি ঘোষনা করা হয়।এর মাধ্যমে পরবর্তী ছয় মাসে অভ্যন্তরীণ ঋণ, মুদ্রা সরবরাহ, অভ্যন্তরীণ সম্পদ, বৈদেশিক সম্পদ কতটুকু বাড়বে বা কমবে এর একটি পরিকল্পনা তুলে ধরা হয়।

ঘোষিত মুদ্রানীতি অনুযায়ী, এবছরের মুদ্রানীতিতে বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহ ০ দশমিক ২ শতাংশ কমিয়ে ১৬ দশমিক ৩ শতাংশ করা হয়েছে। বিগত অর্থবছরের মুদ্রানীতিতে বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবাহ ছিলো ১৬ দশমিক ৫ শতাংশ।

সরকারের নির্ধারিত জিডিপি প্রবৃদ্ধি ও মূল্যস্ফীতির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনকে সামনে রেখে মুদ্রানীতিতে বিভিন্ন প্রাক্কলন করা হয়েছে। চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ৭ দশমিক ৪ শতাংশ এবং মূল্যস্ফীতি ৫ দশমিক ৫ শতাংশ ধরা হয়েছে।

এদিকে, গত অর্থবছরের (২০১৬-১৭) বাজেটে ৭ দশমিক ২ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ধরা হলেও চূড়ান্ত হিসাবে তা ৭ দশমিক ২৪ শতাংশ হবে বলে আশা করছে সরকার। তবে মূল্যস্ফীতি সামান্য বেড়ে গত জুনে ৫ দশমিক ৯২ শতাংশে ওঠেছে। বিশেষ করে চালের দাম বাড়ার কারণে খাদ্য মূল্যস্ফীতি বেশি বেড়েছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গর্ভনর আবু হেনা, মোহাম্মদ রাজি হাসান ও এস কে সুর চৌধুরী। এছাড়াও বাংলাদেশ ব্যাংকের চেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট উপদেষ্টা আল্লাহ মালিক কাজেমি, প্রধান অর্থনীতিবিদ ফয়সাল আহমেদ, প্রধান অর্থনৈতিক উপদেষ্টা মো. আখতারুজ্জামানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

আইএনবি: মেহেদী

এ বিভাগের আরো সংবাদ

শেয়ার করুন: